Bangladesh News Network

সঠিক পথেই আছে সরকার: অর্থমন্ত্রী

0 3,293

কয়েকটি ধনী দেশ যাদের জনসংখ্যা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৫ শতাংশ, তারা মোট কার্বনের ২২ শতাংশের বেশি নিঃসরণ করে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এসব দেশ বিদ্যুৎ উৎপাদনে, শিল্প কারখানায় কার্বন নিঃসরণ করছে অতিমাত্রায়।

‘ক্লাইমেট ভালনারেবলস ফাইন্যান্স সামিট’-উপলক্ষে বুধবার (৭ জুলাই) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী বলেন, তাদের নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারে উদাসীনতা আছে। বৈশ্বিক জলবায়ুর ক্ষতি করলেও তারা প্যারিস চুক্তি অনুযায়ী বছরে ১০০ বিলিয়ন ডলারের তহবিল গঠনের বিষয়ে ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে না। এতে করে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে থাকা বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশ হুমকিতে আছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, তারপরও আশানুরূপ বিদেশি তহবিল না পেলেও ২০১০ সাল থেকে প্রতি অর্থবছরে জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত জনগণের সামাজিক সুরক্ষা এবং জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকি মোকাবিলায় গড়ে ২ বিলিয়ন (প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা) বরাদ্দ দিচ্ছে সরকার।

চলতি অর্থবছরে ২ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রী আশা করেন , সামনে জি৭ এবং জি ২০ সম্মেলনে বিশ্বনেতারা জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকি মোকাবিলায় একসাথে কাজ করার বিষয়ে কার্যকর সিদ্ধান্ত নিবেন। এসময় রামপালে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ কতটা যৌক্তিক এমন প্রশ্ন করলে অর্থমন্ত্রী জানান, দেশের ক্রমবর্ধমান বিদ্যুতের চাহিদা মোকাবিলা করতে সঠিক পথেই আছে সরকার।

তিনি বলেন, সৌর বিদ্যুতে আরও জোর দেওয়ার মতো অনেক জমি আমাদের নেই।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সাবেক মুখ্য সচিব এবং সিভিএফ প্রেসিডেন্সি বাংলাদেশের স্পেশাল এনভয় আবুল কালাম আজাদ বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুকে বর্তমান সরকার বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। এরইমধ্যে ২০২১ থেকে ২০৩০ সালের জন্য একটি ক্লাইমেট প্রসপারিটি প্ল্যান করা হয়েছে । বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে দশকব্যাপী এ পরিকল্পনা অল্পদিনের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী উন্মোচন করবেন। যা গত অক্টোবরে চূড়ান্ত হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশকেও এমন পরিকল্পনা করার আহ্বান জানাবেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমরা একটা বিষয় দেখেছি প্রাকৃতিক দুর্যোগের সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়া বা মোকাবিলা করার সক্ষমতায় বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করেছে। ১৯৭০ সালের ঘূর্ণিঝড়ে যেখানে ৫ লাখ মানুষ মারা যায়। সেখানে সাম্প্রতিককালের আম্ফানে মারা যায় ১০০ জন। আমরা প্রতিটা জীবনকেই গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়ে পরিকল্পনা করি।

Comments
Loading...
%d bloggers like this: