শেরপুরে মতিয়া চৌধুরীর ভিন্নধর্মী উদ্যোগ

0
192

শেরপুর প্রতিনিধিঃ

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় শেরপুরের নালিতাবাড়ী-নকলা উপজেলায় হাজার হাজার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। কর্মহীন এ সব মানুষকে সাহায্য করতে স্থানীয় এমপি সাবেক কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী আওয়ামী লীগের তৃণমূলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন।

মতিয়া চৌধুরী ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের প্রতিটি সদস্যকে নিজেদের সাধ্যমত অর্থ দিয়ে করোনা তহবিল খোলার আহ্বান জানান। তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে নালিতাবাড়ী উপজেলার পৌর এলাকাসহ ১২ ইউনিয়ন ও নকলা উপজেলার একটি পৌরসভাসহ ১০ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা তহবিল গঠন শুরু করেন।

প্রাথমিক পর্যায়ে ২৫ লাখ টাকা সংগ্রহ হয়। এরপর প্রতিটি ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ডে কর্মহীনদের তালিকা করে প্রত্যেককে নগদ ২০০ করে টাকা আর্থিক সাহায্য দেয়া শুরু হয়। ইতিমধ্যে সাড়ে ১২ হাজার কর্মহীন নানা শ্রেণি-পেশার বেকার মানুষকে আর্থিক সহায়তা করা হয়েছে।

শুধু তাই নয়, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার জন্য উপকারভোগীদের তালিকা করে রোববার সেই তালিকা সংশ্লিষ্ট দুই উপজেলার ইউএনওদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

প্রাথমিক পর্যায়ে উপজেলার ৭ হাজার ১৯২ জনের প্রত্যেককে ২০০ টাকা করে মোট ১৪ লাখ ৩৮ হাজার ৪০০ টাকা দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ গোপাল সরকার বলেন, ১২ ইউনিয়ন ও ১০৮টি ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের নিয়ে আমরা প্রায় সাড়ে ১৪ লাখ টাকা সংগ্রহ করে উপজেলার ৭ হাজার ১৯২ জনের প্রত্যেককে ২০০ টাকা করে নগদ সহায়তা দিয়েছি। এ ছাড়া মতিয়া চৌধুরী করোনা রোগীদের সাহায্যে তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৬০ হাজার টাকা ইউএনওর হাতে তুলে দিয়েছেন।

নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে আমরা ১১ লাখ ৪ হাজার ২০০ টাকা সংগ্রহ করেছি। এ টাকা ৫ হাজার ৫২১ জনকে ২০০ টাকা করে নগদ সহায়তা দেয়া হয়েছে। মতিয়া চৌধুরী করোনা রোগীদের সাহায্যে নিজ তহবিল থেকে ৫০ হাজার টাকা ইউএনওর হাতে তুলে দিয়েছেন।

সাবেক কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ দেশের মানুষের দুর্দিনে সব সময় পাশে থেকেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এখন করোনায় কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে নেতাকর্মীরা। তারা নিজেদের পকেটের টাকা দিয়ে ফান্ড তৈরি করে সাধ্যমত মানুষকে সহায়তা করছে। এ ধরনের উদ্যোগ শুধু আওয়ামী লীগের পক্ষে নেয়াই সম্ভব।