মোংলায় হঠাৎ বেজে উঠলো সতর্কতামূলক সাইরেনঃ নিস্তব্দ নগরী

0
238

মোংলা প্রতিনিধিঃ

বন্দর নগরী মোংলায় আজ স্বন্ধ্যা ০৬ টায় হঠাৎ করে একাধিকবার বিকট শব্দে বেজে উঠলো শতর্কতামূলক বিপদজনক সাইরেনের ধ্বনি। সাইরেন শোনার সাথে সাথে আতংকিত হয়ে পড়েন নগরীর বাসিন্দারা।

মোংলা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরবিচ্ছিন্নভাবে নগরীতে মাইকিং চলছে। মাইকে বলা হচ্ছে, সকল জনগনকে ঘরে থাকার জন্য, কেউ যেন ঘর থেকে বের না হন। বের হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যাবস্হা গ্রহন করা হবে।

এছাড়া কাচা বাজার ও ঔষধের দোকান বাদে সকল ধরনের দোকানপাট বিকেল ০৫ টার ভিতরে বন্ধ করে সকল ব্যাবসায়ীকে নিজ নিজ বাসায় যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে। যারা এ আইন আমান্য করবেন, তাদের বিরুদ্ধেও কঠোর শাস্তিমূলক ব্যাবস্হা নেওয়ার কথা বলা হচ্ছে মাইকে।

মসজিদে ঈমাম মোয়াজ্জেন ও সর্বোচ্চ ০৫ জন মুসল্লির বেশি যেতে নিশেধ করা হয়েছে। সকলকে বাসায় বসে নামাজ পড়ার অনুরোধ করা হচ্ছে।

এ নিউজ লেখা পর্যন্ত সাইরে বেজে চলেছে এবং মাইকিং ও চলছে। হঠাৎ এমন পরিবেশ তৈরী হওয়ায় মুহূর্তেই বন্দর নগরী মোংলা নিস্তব্দ হয়ে পড়েছে। চারিদিকে চাপা আতঙ্ক পরিলক্ষিত হচ্ছে। যে যার মতো দ্রত নিজ নিজ বাসায় যাওয়ার জন্য ছুটেছেন।

এ বিষয়ে দৈনিক পূর্বাঞ্চলের মোংলা প্রতিনিধি শেখ নূর আলম বলেন, মোংলা শহরের মানুষ এমনিতেই অনেক সচেতন। আজকের সাইরেন বাজানোর পর তারা আরো বেশি সচেতন হবেন আশাকরি। তবে প্রশাসনের গ্রামাঞ্চলের চা দোকান ও হাট বাজারের দিকে নজর দেওয়াটা খুবই জরুরী। তিনি আরো বলেন, প্রশাসনের এমন পদক্ষেপে সবাই বর্তমান করোনাভাইরাস সক্রমনের ঝুকি থেকে বাঁচতে পারবেন। তিনি মোংলা উপজেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানান।

কার্যত মোংলা উপজেলা প্রশাসনের সাইরেন বাজানো ও শতর্কতামূলক জরুরী ব্যাবস্হা গ্রহনের ফলে মোংলায় এক প্রকার অঘোষিত কারফিউর মতো পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, যা অত্র এলাকার মানুষের জন্য আশীর্বাদস্বরুপ।