ভারী বর্ষণেও তিন ঘণ্টায় জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করছে সিটি করপোরেশন : তাপস

0
63

ভারী বর্ষণেও তিন ঘণ্টার মধ্যে জলাবদ্ধতা নিরসনে সিটি করপোরেশন কাজ করছে বলে আশার বাণী শোনালেন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। তবে এ পরিকল্পনা কবে নাগাদ বাস্তব রূপ পাবে, তার সময়ক্ষণ বলেননি তিনি। এবার বর্ষা আসার আগেই বৃষ্টিতে রাজধানী তলিয়ে গেলেও মেয়রের দাবি, স্বল্পমেয়াদী কিছু কিছু পদক্ষেপের সুফল পাচ্ছে নগরবাসী।

প্রতি বছরই মিলে প্রতিশ্রুতির ফুলঝুঁড়ি। শোনানো হয় নানা আশাজাগানিয়া উদ্যোগের কথা। কিন্তু বাস্তবতা কেবলই দুর্ভোগের। বছর গড়ায়, পালাবদল হয় নগরপিতার, কিন্তু রেহাই মেলে না জলাবদ্ধতার কবল থেকে।

ভোগান্তির নিয়তি থেকে যে সহসাই মিলছে না মুক্তি, তার চিত্র দেখা গেলো এবারও। বর্ষা আসার আগেই এ বছর বৃষ্টিতে রাজধানী তলিয়ে যাওয়ার সাক্ষী হতে হলো নগরবাসীকে।

বুধবার (৯ জুন) রাজধানীতে বেশ কিছু এলাকা পরিদর্শন ও যাত্রাবাড়িতে শেখ রাসেল শিশু পার্ক উদ্বোধন শেষে ঢাকা দক্ষিণের মেয়র দাবি করলেন, পানি নিষ্কাশন-খাল পরিচ্ছতার মতো স্বল্পমেয়াদী বেশ কিছু পদক্ষেপের সুফল পেতে শুরু করেছে ঢাকাবাসী। আর নর্দমা সম্প্রসারণ ও অবকাঠামো উন্নয়নে নেয়া হয়েছে ১০৩ কোটি টাকার মধ্যমেয়াদী পরিকল্পনা।

দীর্ঘমেয়াদী কার্যক্রমের আওতায় প্রণয়ন করা হচ্ছে মহাপরিকল্পনা।

মেয়র ফজলে নূর তাপস বলেন, বৈজ্ঞানিকভাবে লক্ষ্যমাত্রা নেয়া হয়েছে. অতিভারী বর্ষণে ৩ ঘণ্টা, ভারিতে ২ ঘণ্টা, মাঝারি ভারীতে ১ ঘণ্টার মধ্যে জলাবদ্ধতা দূর করতে মাঠ পর্যায়ে জলবল নিয়োগ করে কাজ করা হবে।

তবে আশার কথা শোনালেও কবে নাগাদ মিলবে এমন স্বস্তি, তার সুনির্দিষ্ট কোনো সময়ক্ষণ অবশ্য জানাননি মেয়র।

মেয়র বলেন, এ যাবৎ সিটি করপোরেশনের যত কাজ হয়েছে তা নিজেদের অর্থায়নে হয়েছে। কিন্তু দীর্ঘমেয়াদী কাজ করতে গেলে আমাদের সহযোগীতা লাগবে। আমাদের প্রকল্প প্রণয়ন করতে হবে। এরপর সরকারের সহযোগীতায় সেসব প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আমাদের নিবিড় পর্যাবেক্ষণ করতে হবে।

জলাবদ্ধতা নিরসনে ওয়াসার ব্যর্থতায় নানা সমালোচনার মুখে গত ডিসেম্বরে ঢাকার খাল-নর্দমা, বক্স কালভার্টের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হয় দুই সিটি করপোরেশনকে।