Bangladesh News Network

বিনা প্রয়োজনে বের হলেই গ্রেপ্তার করা হবে: ডিএমপি

হতে পারে ৬ মাসের জেল

0 4,264

আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে যারা বিনা প্রয়োজনে বের হবে তাদের গ্রেপ্তার করা হবে। হতে পারে ৬ মাসের জেল। বুধবার করোনা পরিস্থিতিতে কঠোর বিধিনিষেধের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, সঙ্গত কারণ ছাড়া বের হলে দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারায় গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হবে। আবার আদালতে না পাঠিয়ে মোবাইল কোর্ট দিয়ে তাদের তাৎক্ষণিক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। তবে বেশি প্রয়োজনে ব্যবহার করা যাবে রিকশা।


এই ধারায় সর্বোচ্চ ৬ মাসের জেল, অর্থদণ্ড ও উভয়দণ্ড হতে পারে বলে জানান কমিশনার।

তিনি আরো বলেন, আমরা এর আগে কখনও করিনি। এবারে আমরা এই অবস্থান পর্যন্ত যাব। আপনারা এমনও শুনতে পারেন ডিএমপি প্রথম দিন ৫ হাজার লোককে গ্রেফতার করেছে। এবার আমরা অত্যন্ত শক্ত অবস্থায় থাকবো।

এসময় নাগরিকদের উদ্দেশে কমিশনার বলেন, পুলিশ আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে যতটা কঠোর হবে, আপনার পরিবার-সন্তান ততটাই নিরাপদে থাকবে। আপনারা আমাদের সহযোগিতা করবেন, পুলিশের সাথে তর্কে-বিতর্কে জড়িয়ে আমাদের ফাঁকি দিতে পারবেন, পুলিশের কাজের ভিডিও করে ভাইরাল করে পুলিশকে সমালোচনার মুখে ফেলতে পারবেন তবে সন্তান ও পরিবারকে সংক্রমণ থেকে দূরে রাখতে পারবেন না।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঢাকায় যেসব বাজার কাঁচাবাজার রয়েছে সেগুলোকে রাস্তার পাশে নিয়ে আসা হবে, যাতে মানুষ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বাজার করতে পারেন। খাবারের হোটেলগুলো শুধুমাত্র খাবার বিক্রির জন্য খোলা থাকবে, কেউ বসে খেতে পারবে না। এছাড়াও আমরা অলিগলির কোনো দোকান খোলা রাখতে দেবো না।

কুরিয়ার সার্ভিসের গাড়ির চলাচলের বিষয়ে কমিশনার বলেন, যেহেতু কুরিয়ার সার্ভিস কাভার্ডভ্যান ব্যবহার করে এবং যাত্রী পরিবহন করে না, সে ক্ষেত্রে তারা চলাচল করতে পারবে।

এক প্রশ্নের জবাবে কমিশনার বলেন, জরুরি সেবায় নিয়োজিতরা ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করতে পারবেন। তবে, সাংবাদিকসহ অনুমোদিত যারা বাইরে বের হবেন তারা যেন অবশ্যই মাস্ক এবং আইডি কার্ড নিয়ে বের হবেন।

এর আগে দেশে করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে বৃহস্পতিবার ভোর ছয়টা থেকে সারাদেশে আরোপ হচ্ছে ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ। জারি হওয়া প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এসময় বন্ধ থাকবে সব সরকারি-বেসরকারি অফিস। বন্ধ থাকবে গণপরিবহনসহ যন্ত্রচালিত সব যানবাহন। তবে শিল্পকারখানা স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চালু থাকবে।

এই সময়ে জরুরি কারণ ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে বের হলে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে এবার বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি সেনাবাহিনীও মাঠে থাকবে।

Comments
Loading...
%d bloggers like this: