Bangladesh News Network

বাদগিসের রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ ফিরে পেয়েছে সরকারি বাহিনী

0 3,277

বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) প্রদেশটিতে কয়েকশ’ নতুন সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয় জানিয়েছে, প্রাদেশিক রাজধানী কুলয়াহু-নাও শহরের প্রান্তে কিছুটা লড়াই চলছে। প্রদেশটির রাজধানীর সঙ্গে মধ্য এশীয় দেশ তুর্কমেনিস্তানের সীমান্ত রয়েছে।-খবর রয়টার্স ও ডনের।

পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ বাদগিসের রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ ফিরে পেয়েছে আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনী। একদিন আগে শহরটি দখল করে নিয়েছিল বিদ্রোহী গোষ্ঠী তালেবান।

বুধবার শহরটির পুলিশের প্রধান কার্যালয়সহ সরকারি মূল ভবনগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছিল তালেবান। দুই দশকের যুদ্ধের পর মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিদেশি বাহিনীর প্রত্যাহারের ঘোষণার পর নাটকীয়ভাবে তালেবানের উত্থান ঘটছে। দেশটির একের পর এক জেলার নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে তারা।

আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ফাওয়াদ আমান বলেন, শহরটি ফের আমাদের নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। শহরের উপকণ্ঠে তালেবানের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত রেখেছি।

তিনি বলেন, কুলয়াহু-নাও শহরের উপকণ্ঠে ৬৯ তালেবান যোদ্ধাকে হত্যা করা হয়েছে। সাম্প্রতিক সহিংসতা শুরু হওয়ার পর এই প্রথম কোনো প্রাদেশিক রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছিল তালেবান।

ফাওয়াদ আমান বলেন, তালেবানের বিপুল অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরকারি বাহিনী জব্দ করেছে। তবে রাজধানী ছাড়া প্রদেশটির বাকি অঞ্চল তালেবানের দখলে। পশ্চিমা নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলেন, আফগানিস্তানের শতাধিক জেলা তালেবানের নিয়ন্ত্রণে। কিন্তু বিদ্রোহীরা বলছে, ৩৪টি প্রদেশের ২০০ জেলা তাদের নিয়ন্ত্রণে।

তবে প্রধান প্রধান শহর ও প্রাদেশিক রাজধানীগুলো আফগান সরকারের দখলে। এদিকে তালেবানের রাজনৈতিক শাখার এক প্রতিনিধি বৃহস্পতিবার রাশিয়া সফরে গেছেন।

বিদেশি বাহিনী প্রত্যাহারের ঘোষণা আসলে তালেবান দ্রুতই বিভিন্ন শহর অতিক্রম করে উত্তর ও পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোর দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এতে আফগান সেনারা যেমন আত্মসমর্পণ করছে, তেমনই স্থানীয়রা ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছেন।

আফগান প্রতিরক্ষামন্ত্রী বিসমিল্লাহ মোহাম্মদী বলেন, যুদ্ধ বর্তমানে একটি কঠিন পর্যায়ে চলে গেছে। নিরাপত্তা বাহিনী দেশকে সুরক্ষা দিচ্ছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশবাসী সব সম্পদ ও শক্তি নিয়ে লড়াইয়ে নামবে।

কাতারে তালেবানের সঙ্গে আফগান সরকারের আলোচনা সাম্প্রতিক মাসগুলোতে খুব একটা এগোয়নি। যদিও যুদ্ধের দুই পক্ষই আলোচনা চালিয়ে আসছে।
এদিকে আফগানিস্তানের সংকট কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করতে প্রস্তুত থাকার কথা জানিয়েছে ইরান।

বুধবার তালেবান প্রতিনিধিদের শিয়াসংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটি আহ্বান জানায়, তারা যাতে নিজেদের ভবিষ্যৎ নিয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত নেন।

আফগান সরকারের প্রতিনিধি ও তালেবানের রাজনৈতিক শাখার প্রতিনিধিদের এক বৈঠকে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ বলেন, রাজনৈতিক সমাধান বের করাই সবচেয়ে ভালো উপায় হবে।

Comments
Loading...
%d bloggers like this: