ফেসবুকে সক্রিয় প্রতারক চক্র,ইগলু’র সিইও’র নামে টাকা আদায়ের চেষ্টা

0
426

মোঃ সিরাজুল ইসলাম, ন্যাশনাল ডেস্কঃ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সক্রিয় হয়ে উঠেছে প্রতারক চক্র। সমাজের বিভিন্ন মানুষের আইডি হ্যাক করে কিংবা ফেক আইডি খুলে তাদের পরিচিতদের কাছে চলমান করোনা পরিস্থিতিসহ নানা অজুহাতে টাকা চাইছে তারা। এজন্য, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সহায়তা নিচ্ছে প্রতারকরা।

এবার ইগলু’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং টেলিভিশন উপস্থাপক জি এম কামরুল হাসানের নাম ব্যবহার করে ভুয়া অ্যাকাউন্ট দিয়ে তার পরিচিত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে টাকা পয়সা ধার চাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এমনকি তার অফিসের সহকর্মীদের কাছ থেকে জরুরি প্রয়োজনের কথা বলে বিকাশে টাকা চাওয়া হয়েছে।

বিষয়টি জানতে পেরে ভুক্তভোগী তার মূল আইডি থেকে একটি পোস্ট করে সবাইকে সতর্ক করেছেন। এ বিষয়ে কলাবাগান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি। পরবর্তীতে আইডিটি বন্ধ করে দেয়া হয়।

ডায়েরিতে কামরুল হাসান লিখেছেন, ‘আমি এই মর্মে জানাচ্ছি যে, আজ (৬, ২০২০) দুপুর আনুমানিক ১১টার সময় আমি অবগত হই যে, কে বা কাহারা আমার নামে ফেসবুকে ফেক আইডি খুলে আমার বন্ধু ও বিভিন্ন পরিচিত মহলে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে মেসেজ করে বিকাশ এর মাধ্যমে টাকা চাইছে। ম্যাসেজে ০১৯৮০৮৪২৮২০ এই নাম্বারটিতে বিকাশ করতে বলা হয়। উল্লেখ্য, যেই প্রোফাইল থেকে মেসেজ করা হয় তার লিঙ্ক https:www.facebook.com/mayanuddin.prince। আমার লিঙ্ক হচ্ছে https:www.facebook.com/kamrul.hassan.718। উল্লেখিত ঘটনাটি খুবই বিব্রতকর ও মান হানিকর।’

কামরুল হাসান যমুনা নিউজকে বলেন, পরিচিত কয়েকজনের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরে আমি আইনগত পদক্ষেপ নিয়েছি। এ বিষয়টি আমার জন্য খুব বিব্রতকর। এ ধরনের প্রতারক চক্রের বিষয়ে সকলের সতর্ক হওয়া প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, চলমান করোনা পরিস্থিতিতে ত্রাণ ও জরুরি প্রয়োজনের কথা বলে বিভিন্ন জনের কাছে ফেসবুকে অর্থ সহায়তা ও ধার চাইছে এ ধরনের প্রতারক চক্র। প্রতারণা এড়াতে যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে ক্রসচেক না করে আর্থিক লেনদেন না করার পরমর্শ সাইবার বিশেষজ্ঞদের।