পুলিশের এসআই খালেকের জানাযা সম্পন্ন, উপস্হিত ছিলেন স্হানীয় এমপি

0
132

বরগুনা প্রতিনিধি:

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করা ডিএমপি’র পুলিশ অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) দক্ষিণে কর্মরত এএসআই আব্দুল খালেকের দাফন সমাপ্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে তার গ্রামের বাড়ি বরগুনার বেতাগীতে জানাজা শেষে তাকে যথাযথ মর্যাদায় দাফন করা হয়। আব্দুল খালেকের জানাজার নামাজ পড়িয়েছেন বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন।

জানা যায়, প্রাথমিকভাবে করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ার পর এএসআই আব্দুল খালেককে মতিঝিলের আরামবাগে একটি হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন সেন্টারে নেয়া হয়। গতকাল তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়। এদিকে, বুধবার বিকেল থেকে আব্দুল খালেকের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে কোয়ারেন্টাইনে তাকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। সেখান থেকে হাসপাতালে নেবার পর রাত সোয়া ১২টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বৃস্পতিবার বেলা ১১টায় ঢাকায় জানাযা শেষে বেতাগীতে তার মৃতদেহ নিয়ে আসা হয়। রাত আটটায় বেতাগীতে মৃত আঃ খালেকের কফিন বেতাগীর ঝোপখালীতে পৌঁছালে বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শওকত হাচানুর রহমান রিমন তার জানাজার নামাজে ইমামতি করেন।

এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন বরগুনা পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন পিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো.তোফায়েল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. শাহজাহান হোসেন, বেতাগী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মাকসুদুর রহমান ফোরকান, বেতাগী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাজিব আহসান, পৌর মেয়র এবিএম গোলাম কবির , বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সাখাওয়াত হোসেন তপু সহ অন্যান্য পুলিশের সদস্যবৃন্দ।

বরগুনার বেতাগী উপজেলার ঝোপখালী গ্রামের আজিম উদ্দিন মৃধার ছেলে আব্দুল খালেক। সহকর্মীরা জানিয়েছেন, শান্ত, বিনয়ী, দায়িত্বপরায়ণ গুণ স্বভাবের ছিলেন এএসআই আব্দুল খালেক। তিনি স্ত্রী, ১ ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্যক আত্মীয়-স্বজন রেখে গেছেন।