নগরকান্দায় ভিজিএফের তালিকায় ইউপি সদস্যের পুরো পরিবার

0
116

ফরিদপুরের নগরকান্দায় এক ইউপি সদস্য নিজের স্ত্রী, দুই ছেলেসহ পরিবারের ৫ সদস্যের নাম ভিজিএফের তালিকায় দেয়ায় এলাকায় ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বিদেশ ফেরত ভাই ও ভাইয়ের স্ত্রী’র নামও রয়েছে তালিকায়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, দরিদ্র অসহায় অনেক পরিবারের নাম তালিকায় না থাকলেও ইউপি সদস্য গোপনে তার পরিবারের ৫ জনের নাম দিয়ে অসহায় মানুষদের সঙ্গে অবিচার করেছেন। এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানের যোগসাজশ রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির হোসেন ঠান্ডু বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় ত্রাণের জন্য ভিজিএফ তালিকা প্রস্তুত করেন। সেই তালিকায় ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর মাতুব্বর এর স্ত্রী, দুই ছেলে, আপন ছোট ভাই ও আরেক ভাইয়ের স্ত্রী’র নাম রয়েছে। ভিজিএফের তালিকায় দেখা গেছে ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর মাতুব্বরের স্ত্রী মাহফুজা বেগমের নাম রয়েছে ২৭১ নাম্বার তালিকায়। তার দুই ছেলে সাব্বির ২৬৭ ও আরেক ছেলে ওমর সানি রয়েছে ২৬৮ নম্বর তালিকায়। ইউপি সদস্যের আপন ছোট ভাই যিনি সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশ থেকে দেশে এসেছেন সেই বাবলু ও তার অপর বিদেশ ফেরত ভাই লাভলুর স্ত্রী রোজির নামও রয়েছে তালিকার যথাক্রমে ২৬৯ ও ২৭০ নাম্বারে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, ইউপি সদস্য গত তিনদিন আগেও দুই বস্তা চাল বিক্রি করে দিয়েছে। সে গরীবদের হক নষ্ট করে নিজেরাই ভাগ করে খাচ্ছে। তদন্ত করে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসকের কাছে দাবি জানান তারা।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর মাতুব্বর বলেন, বর্তমান সময়ে খুব খারাপ অবস্থার মধ্যে আছি। আমি স্ত্রী, ছেলেদের নাম দিয়েছি যদি তারা কিছু পায়। এছাড়া আমার ভাই বিদেশ থেকে দেশে এসে খুব অসহায় হয়ে পড়েছে। তালিকায় তাদের নাম দিয়ে রেখেছি যদি সরকার কোন কিছু দেয়।

কাইচাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কবির হোসেন ঠান্ডু বলেন, আমার ইউনিয়ন থেকে ১৯শ ব্যক্তির তালিকা করা হয়েছে। দ্রুত তালিকা করার কারণেই অনেক নাম চলে এসেছে। তবে যাচাই-বাছাই করে নাম বাদ দিয়ে সঠিক ব্যক্তিদের ত্রাণ দেয়া হবে।