দূর্যোগে সবাইকে সতর্ক থেকে স্বাস্হ্যবিধি মেনে চলার আহবান প্রধানমন্ত্রীর

0
114

মোঃ সিরাজুল ইসলাম, ন্যাশনাল ডেস্কঃ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগে দোকান-পাট খুলে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। সেইসঙ্গে সাধারণ ছুটি ১৫ তারিখ বাড়ানো হতে পারে বলেও জানান তিনি। আজ সোমবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে রংপুর বিভাগের ৮ জেলার প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় শুরু করার আগে স্বাগত ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে মানুষকে সুরক্ষিত রেখে জেলা পর্যায়ে কিছু কুটিরশিল্প ও ক্ষুদ্র শিল্পপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের এই দুর্যোগে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে এবং সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

আজ রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, রংপুর ও গাইবান্ধা জেলার প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং সশস্ত্র বাহিনীর প্রতিনিধিসহ শিক্ষক ও মসজিদের ইমামসহ অন্যান্য প্রতিনিধির সঙ্গে মতবিনিমিয় করছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ইতোমধ্যে আমরা ছুটি ১৫ মে পর্যন্ত বৃদ্ধি করতে যাচ্ছি। করোনা পরিস্থিতিতে দেশের অর্থনীতির চাকা যেন সুরক্ষিত থাকে, মানুষকে একেবারে ঘরে বন্দি না করে সীমিত অবস্থায় জরুরি কিছু কিছু কাজ চলতে হবে। যাতে মানুষের কষ্ট না হয়। ঈদের আগে যদিও বড় জমায়েত করা যাবে না। সবাইকে যার যার মতো দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে। এ ব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।’ সবাইকে জরুরি কারণ ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়া এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী তার এ বক্তব্যে দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগাম শুভেচ্ছা জানান।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। প্রথম দফায় ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি দেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে আরও ৪ দফা বাড়িয়ে ছুটির মেয়াদ ৫ মে পর্যন্ত করা হয়। সেই ছুটি আবারও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এর আগে করোনা সংকট নিয়ে ছয় দফা পৃথক ভিডিও কনফারেন্সে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট, রাজশাহী, বরিশাল এবং ময়মনসিংহ বিভাগের ৫৬টি জেলার সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।