জনগণের কল্যাণে সেবার এ ধারা অব্যাহত রাখতে হবে: আইজিপি

0
126

মানুষের কল্যাণে পুলিশ সদস্যের ত্যাগ ও মানবিক কার্যক্রমের প্রশংসা করে মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, জনগণের কল্যাণে সেবার এ ধারা অব্যাহত রাখতে হবে।

করোনা পরিস্থিতিতে চলমান কার্যক্রম ও স্বাভাবিক আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখা প্রসঙ্গে নিয়মিত দিক নির্দেশনার অংশ হিসেবে রোববার (২৬ এপ্রিল) পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সকল পুলিশ ইউনিটের কমান্ডারের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে নানা বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনার পাশাপাশি এ কথা বলেন তিনি।

আইজিপি বলেন, দেশের সাধারণ জনগণ ও গুণীজনদের যে অকুণ্ঠ ভালবাসা ও প্রশংসা পুলিশ পাচ্ছে। তার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে মানুষের কল্যাণে পুলিশ কাজ করে যাবে। সেই সঙ্গে কোনো ধরনের অনিয়ম, অপেশাদার আচরণ ও অসদুপায়কে বিন্দুমাত্র প্রশ্রয় দেয়া হবে না।

পবিত্র রমজানে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, কালোবাজারি ও মজুদদারি রোধে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করতে নির্দেশ দেন তিনি। পণ্যবাহী ট্রাক বা বাহনগুলো পণ্য পৌঁছে দিয়ে ফেরার সময় যেনও কোনও পর্যায়েই হয়রানির শিকার না হয় সেটি নিশ্চিত করতে সকলকে নির্দেশ দেন আইজিপি।

পাশাপাশি করোনার বিস্তার রোধে লকডাউন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিশ্চিত করতে পুলিশের কার্যক্রমকে অব্যাহত রাখার নির্দেশ দেন।

করোনায় শনাক্ত পুলিশ সদস্যদেরকে সুচিকিৎসা দেয়ার সকল আয়োজন রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালসহ পুলিশের অন্যান্য হাসপাতালগুলোতে করোনা সংক্রান্ত চিকিৎসা সুবিধা বাড়ানো হয়েছে।

এছাড়া বিভাগীয় পর্যায়েও নেয়া হয়েছে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা। পুলিশ সদস্য ও তাদের পরিবারের পাশে বাংলাদেশ পুলিশ রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, করোনায় আক্রান্ত পুলিশের যে কোনও সদস্যের সুচিকিৎসাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে পর্যাপ্ত আয়োজন রাখা হয়েছে। দেশ ও জনগণের কল্যাণে যারা আত্মনিয়োগ করেছেন তাদের প্রতি এ দেশের মানুষেরও অকুণ্ঠ ভালবাসা ও শ্রদ্ধা রয়েছে।

দায়িত্বপালনরত সকল পুলিশ সদস্যের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ সুরক্ষা সামগ্রী সংগ্রহ করা হয়েছে এবং তা বিভিন্ন ইউনিটেও পৌঁছে দেয়া হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন আইজিপি।