চীন থেকে কেনা মুখোশ ফেরত পাঠিয়েছে বিভিন্ন দেশ, কেন?

0
78

সাম্প্রতিক সময়ে চীন থেকে কেনা মুখোশ ফেরত পাঠিয়েছে স্পেন, নেদারল্যান্ডস, তুরস্ক এবং অস্ট্রেলিয়া। যেখানে বাজারে এই সরঞ্জামের এত আকাল, সেখানে কেন এই সিদ্ধান্ত?

দুনিয়া জুড়ে যেখানে পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) এবং করোনাভাইরাস টেস্টিং কিট-এর আকাল, সেখানে তাদের আবশ্যিক শর্ত পূরণ না হওয়ায় চীনের তৈরি মুখোশের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খুলল ফিনল্যান্ড। এবং এই তালিকায় একমাত্র দেশ নয় তারা।

বুধবার ফিনল্যান্ড আবিষ্কার করে যে চীন থেকে আসা ২০ লক্ষ সার্জিক্যাল মাস্ক এবং ২ লক্ষ ৩০ হাজার রেসপিরেটর মাস্কের প্রথম কিস্তিতেই গলদ রয়েছে। হাসপাতাল পরিবেশে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে আবশ্যিক সুরক্ষা প্রদান করে না এই মুখোশগুলি, এমনটাই অভিযোগ।

তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আইনো-কাইসা পেকোনেন বলেছেন যে আবাসিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্মী এবং বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্বাস্থ্য পরিষেবা প্রদানকারী কর্মীরা এই মুখোশগুলি ব্যবহার করতে পারবেন।

সাম্প্রতিক সময়ে চীন থেকে কেনা মুখোশ ফেরত পাঠিয়েছে স্পেন, নেদারল্যান্ডস, তুরস্ক এবং অস্ট্রেলিয়া, যার ফলে চীনের সরকার বলতে বাধ্য হয়েছে যে কেনার আগে মুখোশগুলি ‘দু’বার দেখে’ নেয়নি এইসব দেশ।

এই সপ্তাহের প্রথম দিকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় একটি টুইটে দাবি করে যে, চীনের উৎপাদনকারীরা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন যে এইসব মুখোশ “সার্জিক্যাল নয়”।

আর যেসব দেশে পৌঁছেছে চীনের ত্রুটিপূর্ণ মুখোশ:

ক্যানাডা

বুধবার টরন্টো শহরের তরফে জানানো হয় যে গুণগত মান বজায় না রাখায় ফেরত পাঠানো হয় অন্তত ৬২ হাজার ৬০০ মাস্ক। এক সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়, গত ২৮ মার্চ শহরে এসে পৌঁছায় প্রায় ২ লক্ষ ডলারের ওই চালান, কিন্তু মুখোশগুলি ছিঁড়ে যাওয়ার অভিযোগ পেয়ে প্রশাসন ঠিক করেছে, সমস্ত চালানটিই ফেরত পাঠানো হবে প্রস্তুতকারকের কাছে, যদি পুরো টাকা ফেরত পাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়।

স্পেন

এক চীনা প্রস্ততকারকের কাছ থেকে ৩ লক্ষ ৪০ হাজার টেস্টিং কিট কেনার পর স্পেনের সরকার দাবি করেছে যে প্রায় ৬০ হাজারটি কিট কোভিট-১৯ এর সঠিক পরীক্ষা করতে অক্ষম।

স্পেনের চীনা দূতাবাস টুইট করে জানায়, এইসব কিট তৈরি করেছে যেই সংস্থা, সেই ‘সেনঝেন বায়োইজি বায়োটেকনোলোজি’র কাছে নিজেদের মাল বিক্রি করার জন্য প্রয়োজনীয় লাইসেন্স নেই।

নেদারল্যান্ডস

মার্চ মাসে নেদারল্যান্ডসের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ঘোষণা করে যে, তারা প্রায় ৬ লক্ষ মুখোশ চীনে ফেরত পাঠিয়ে দিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দাবি করা হয় যে, মুখোশগুলি ঠিকঠাক ফিট করছে না এবং তাদের ফিলটারও সঠিকভাবে কাজ করছে না, যদিও গুণগত মানের সার্টিফিকেট সমেত পাঠানো হয়েছিল সেগুলি।

তুরস্ক

তুরস্কও ঘোষণা করে যে, একাধিক চিনা সংস্থার কাছ থেকে কেনা বেশ কিছু টেস্টিং কিট সঠিক পরীক্ষা করতে ব্যর্থ, যদিও সঠিক ফলাফল দেখিয়েছে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ কিট।