করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরায় কলেজছাত্রের মৃত্যু

0
106

জ্বর-শ্বাসকষ্টসহ করোনার সব উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরার নারায়ণপুরে এক কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তবে স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, তার শরীরে করোনার লক্ষণ মনে হচ্ছে না, তবে তার নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) দিনগত রাতে সদর উপজেলার বল্লী ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়। ওই কলেজছাত্রের নাম হাসান আলী (২০)। তিনি সদর উপজেলার বল্লী ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের বাহারুল ইসলামের ছেলে ও ঝাউডাঙ্গা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

বল্লী ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইরাদ আলী মোবাইল ফোনে জানান, গত ৬/৭ দিন ধরে ওই যুবকের গায়ে জ্বর, ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট ছিল।

তার পরিবারের পক্ষে জানানো হয়, গায়ে জ্বর থাকায় সে দুর্বল হয়ে পড়ে। এতে সে তেমন খাওয়া দাওয়া করতো না। স্থানীয় গ্রাম্য ডাক্তার দেখিয়ে তাকে ওষুধ খাওয়ানো হয়। এক পর্যায়ে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর সময় তার মুখ দিয়ে রক্ত বের হয়। তার মৃত্যুর খবরে এলাকাজুড়ে করোনা আতঙ্ক বিরাজ করছে। তার পরিবারের সদস্যরা মরদেহ থেকে কিছুটা দুরে অবস্থান করছেন। ওই বাড়ির আশেপাশেও এখন কেউ আসছে না। স্থানীয় গ্রাম পুলিশ দিয়ে বাড়িটি পাহারায় রাখা হয়েছে।

তবে সাতক্ষীরার সিভিল সার্জন ডা. হুসাইন শওকত জানান, এ খবর পাওয়ার পর একটি মেডিকেল টিম পাঠানো হয়েছিল। তারা তার শরীরে কোনো করোনার ভাইরাসের লক্ষণ পাননি। তবে যেহেতু এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে, সেজন্য তার করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হবে।

সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘণ্টায় বিদেশ ফেরত আরো নতুন ৪৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছে। এ নিয়ে এ পর্যন্ত মোট ২ হাজার ৮৯৩ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে আরো ৬৯৬ জনকে।