Bangladesh News Network

এক গাছেই ধরল ১২১টি জাতের আম!

0 4,309

এক গাছেই ধরল ১২১টি জাতের আম! এমন ‘জাদু গাছের’ খবর ছড়িয়ে পড়া মাত্র সেই গাছ দেখতে মানুষের ঢল নেমেছে সেই আমবাগানে। এক বার ভাবুন তো, একই গাছের একটি ডালে ল্যাংরা ঝুলছে, সেই গাছেরই আবার অন্য ডালে ঝুলে রয়েছে আম্রপালি। আম্রপালি থেকে চোখ সরতেই হয়তো দেখতে পাবেন পাতার ফাঁকে উঁকি মারছে ফজলি!

একই গাছে দশেরা, ল্যাংড়া, চৌসা, রামকেলা, সাহারানপুর অরুণ, সাহারানপুর বরুণ, সাহারানপুর সৌরভ, সাহারানপুর গৌরব, সাহারানপুর রাজীব, লখনৌ সাফেদা, টমিতে কিংস, পুস সূর্য, সেনসেশন, রটাউল, কলমি মালদা, বোম্বাই, স্মিথ, মঙ্গিফেরা জলোনিয়া, বুলন্দশহর, লরানকু, এলআর স্পেশাল, আলমপুর বেনিশা, আসৌজিয়া দেওবন্দসহ আরও কয়েকটি জাতের আম।

অবিশ্বাস্য হলেও এমন গাছের দেখা মিলেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরের এক সংস্থার বাগানে।

অবশ্য বিষয়টি একেবারেই প্রাকৃতিক নয়। প্রায় পাঁচ বছর ধরে গাছটির উপর বিশেষ এক গবেষণা চালিয়ে গেছেন ভারতীয় উদ্ভিদ বিজ্ঞানীরা। যার ফলে এক গাছেই ১২১ জাতের আম ফলনে সফল হয়েছেন তারা। দেশটির গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

গণমাধ্যমটি জানায়, পাঁচ বছর আগে গবেষণার জন্য ১০ বছর বয়সি দেশীয় আমের গাছ নেয়া হয়। এরপর ভারতের উদ্যানতত্ত্ব পরীক্ষা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের তৎকালীন যুগ্ম পরিচালক রাজেশ প্রসাদের তত্তাবধানে গাছটিতে ১২১টি জাতের আমের শাখা গ্রাফটিং বা কলম করা হয়। ৫ বছর বাড়তে দেয়া হয় গাছটিকে। বর্তমানে গাছটিতে ১২১ জাতের আম ধরেছে। গাছটি দেখতে অদ্ভূত রকমের সুন্দর। বিভিন্ন শাখায় বিভিন্ন ধরনের আম শোভা পাচ্ছে।

এমন সফলতার পর সাহারানপুরের উদ্যান-গবেষণা পরীক্ষা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র উপ-পরিচালক জয়করন সিং বলেন, ৫ বছরের কষ্ট সফল হয়েছে। এখন আমরা আরো নতুন প্রজাতি নিয়ে গবেষণা করছি। উন্নতমানের আম উৎপাদন করাই আমাদের লক্ষ্য।

Comments
Loading...
%d bloggers like this: