উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ করোনা মোকবিলায় ব্যয় করা হবে:প্রধানমন্ত্রী

0
101

অত্যাবশ্যকীয় নয় এমন উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ আপাতত করোনা মোকবিলায় ব্যয় করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একাদশ জাতীয় সংসদের ৭ম অধিবেশনে উপস্থিত থেকে শোক বক্তৃতায় এ কথা বলেন তিনি।

এর আগে, বিশ্বব্যাপী করোনা সংকটের মধ্যেই শুরু হয় একাদশ জাতীয় সংসদের ৭ম অধিবেশন। শনিবার (১৮ এপ্রিল) বিকেল ৫টায় জাতীয় সংসদের অধিবেশন কক্ষে এ অধিবেশন শুরু হয়।

শুরুতেই সংসদের সভাপতি স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জানান, শুধুমাত্র সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণেই এ অধিবেশন। বৈশ্বিক ও জাতীয় সংকটের প্রেক্ষাপটে এ অধিবেশন হবে সংক্ষিপ্ত।

অধিবেশনের শুরুতেই শোক প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। বিশ্বব্যাপী করোনায় মৃত্যবরণ করা মানুষদের স্মরণে শোক প্রকাশ করা হয়। শোক প্রকাশ করা হয় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করা সিলেটের ওসমানি মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক মাঈনদ্দিননের স্মরণেও।

এছাড়া, গেল অধিবেশন থেকে এ অধিবেশনের মধ্যে মৃত্যবরণ করা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, বিশ্বনেতা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের স্মরণে শোক প্রকাশ করা হয়।

এসময় প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, যারা ত্রাণ চাইতে পারছেন না তাদের ঘরেও খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া হবে।

সংসদ বৈঠকের কোরাম পূর্ণ হওয়ার জন্য নূন্যতম প্রয়োজন ৬০ জন বা তার সামান্য কিছু বেশি সদস্য সংসদের বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন বলে আগে থেকেই সিদ্ধান্ত হয়। এজন্য সিনিয়র সংসদ সদস্য এবং ঢাকার বাইরে অবস্থানকারী এমপিদের উপস্থিত হতে আগেই নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

এদিকে অধিবেশন চলাকালে সংসদ ভবনে সমাগম এড়াতেও নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়। গণমাধ্যমকর্মীদের অধিবেশন কাভার না করতে আগেই অনুরোধ করা হয়। এছাড়া অধিবেশনের জন্য অত্যাবশ্যকীয় সংসদ সচিবালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ব্যতীত অন্যদের উপস্থিত না হতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

পরে, সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের ১ দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে একাদশ জাতীয় সংসদের ৭ম অধিবেশন সমাপ্তি ঘোষণা করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।