আবার খুলল চীনের সেই বাজারগুলো, খাঁচাভর্তি কুকুর-বিড়াল-বাদুর

0
83

করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে নিজেদের বিজয়ী ঘোষণা করেছে চীন। দেশটির যে রাজ্যে থেকে করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছিলো সেই হুবেই-এ বাজারঘাট, অফিস আদালত বেশিরভাগই খুলে দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে খুলে দেয়া হয়েছে বেশ কিছু মাংসের বাজার; যেখানে কুকুর, বিড়াল, বাদুরসহ বিভিন্ন প্রাণীর মাংস বিক্রি করা হয়। চীন এই বাজারগুলোকে বলে থাকে ‘ওয়েট মার্কেট’।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল দেশটির একটি বাজারের বেশ কিছু ছবি প্রকাশ করেছে যাতে দেখা যাচ্ছে, বিড়াল এবং কুকুর ভর্তি বেশ কয়েকটি খাঁচা।

গত জানুয়ারিতে চীন তাদের ওয়েট মার্কেটগুলো বন্ধ করে দেয়। হুবেই প্রদেশের উহানের এই ধরণের একটি বাজর থেকেই প্রথম করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছিল। চীনাদের দাবি, তারা ভাইরাসটিকে পরাজিত করতে সক্ষম হয়েছে। আর তাই বাজারগুলো আগের মতো চলবে।

ডংগু শহরের একটি বাজার পর্যবেক্ষণের পর ডেইলি মেইলের সাংবাদিক জর্জ নোলেস বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাবের আগে যেমনটি ছিলো ঠিক সেই অবস্থায় ফিরে গেছে এই বাজার। পার্থক্য শুধু এটুকুই যে, নিরাপত্তারক্ষীরা কাউকে বাজারের ছবি তুলতে দিচ্ছেন না যা আগে কখনোই হয়নি।

চীনের দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় গুইলিন থেকে আরের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সেখানে বাদুর, সাপ, মাকড়োশা, টিকটিকি, গিরগিটি এবং বিচ্ছু বিক্রির বিজ্ঞাপন দেয়া হচ্ছে বিভিন্ন ব্যানারে। এমনকি কিছু কিছু বিজ্ঞাপনে এগুলোকে সাধারণ রোগের প্রতিষেধক হিসেবেই দাবি করা হচ্ছে।

চীনের বাজারে নতুন করে কুকুর-বাদুড়ের মাংস বিক্রির খবর প্রকাশ্যে আসতেই শঙ্কা তৈরি হয়েছে। কারণ, বিজ্ঞানীদের ধারণা এই বাদুড়ের মাংস থেকেই প্রথম করোনা ছড়িয়েছিল। হুবেই প্রদেশের মাংসের বাজারগুলিই প্রথম করোনার এপিসেন্টার হয়ে উঠেছিল। নতুন করে এই মাংসের বাজার খুললে নতুন করে করোনার সংক্রমণ হতে পারে। আর এবার যদি নতুন করে সংক্রমণ হয়, তবে তা আগের থেকে অনেক বেশি বিপজ্জনক হবে বলেও মত বিশেষজ্ঞদের।