Bangladesh News Network

আবারও গণটিকাদান শুরু হয়েছে

প্রথম দিনে প্রবাসীদের বিক্ষোভ

0 5,045

দুই মাসের বেশি সময় পর সিনোফার্ম ও ফাইজারের টিকা নিয়ে সারাদেশে ফের গণটিকাদান শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সব মেডিকেল কলেজ, জেলা হাসপাতাল, সদর হাসপাতাল ও ২৫০ শয্যার হাসপাতালে সিনোফার্মের টিকাদান শুরু হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত টিকা দেয়া হবে। আর ফাইজারের টিকা দেয়া হচ্ছে ঢাকার সাতটি কেন্দ্রে।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দিয়ে দেশে গণটিকাদান শুরু হয়। কিন্তু টিকা সংকট দেখা দিলে গত ২৫ এপ্রিল কর্মসূচি স্থগিত করা হয়। সেসময় টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হচ্ছিল।

সম্প্রতি চীনের সিনোফার্ম এবং যুক্তরাজ্যের ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা আসার পর বুধবার আবারো গণটিকাদান শুরুর ঘোষণা দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সে অনুযায়ী দুই মাস ৭দিন পর ফের শুরু হলো টিকাদান কর্মসূচি।

তবে কিছু কিছু জায়গায় টিকাদান পুরোপুরি শুরু হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, ঢাকায় ৪৮টি কেন্দ্রের মধ্যে আটটি কেন্দ্র বাদ দেয়া হয়েছে। সিনোফার্মের টিকা দেয়া হচ্ছে ঢাকার ৪০টি কেন্দ্রে।ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল কেন্দ্রে দেয়া হচ্ছে ফাইজারের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা।

এদিকে, টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধনী দিনে, বৃহষ্পতিবার সকাল থেকেই টিকা নিতে কুর্মিটোলা হাসপাতালে জড়ো হতে থাকেন প্রবাসী শ্রমিকরা। নিবন্ধন ছাড়া টিকা দেয়া হবে না, হাসপাতাল থেকে এ তথ্য জানানো হলে সেখানেই বিক্ষোভ শুরু করেন তারা।

টিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধন করতে এসে এ সময় প্রবাসী শ্রমিকদের তোপের মুখে পড়েন প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহম্মদ। পরে তিনি জানান, সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন জটিলতা এখনো কাটেনি। সোমবার থেকে শুরু হবে নিবন্ধন। শুক্রবার থেকে সারা দেশে জনশক্তি প্রশিক্ষণ ব্যুরের ৫৩টি কেন্দ্রে সম্পন্ন করতে হবে নিবন্ধন, জানান জনশক্তি কর্মসংস্থান প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক শহীদুল ইসলাম। সব জটিলতা কাটিয়ে মঙ্গলবার থেকে তাদের টিকা দেয়া শুরু হবে বলে জানিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়। সোমবার থেকে ফাইজারের করোনা টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন অভিবাসী শ্রমিকরা।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের টিকা কর্মসূচির সদস্য সচিব ডা. শামসুল আলম বলেন, স্বাস্থ্যবিভাগ হয়ে প্রবাসীদের ডাটাবেজ চলে যাবে আইসিটি বিভাগে। এ প্রক্রিয়া শেষে সোমবার থেকেই সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমে টিকার নিবন্ধন করতে পারবেন প্রবাসীরা।

সৌদি অআরব, কুয়েতসহ যেসব দেশে সিনোফার্মের টিকা নিয়ে জটিলতা রয়েছে, শুধু সেসব দেশের প্রবাসীদেরই ফাইজারের টিকা দেয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়।
নতুন করে নিবন্ধন কার্যক্রম খুলে দেয়ার পর বুধবার পর্যন্ত টিকার জন্য ৭২ লাখ ৪৮ হাজার ৮২৯ জন নিবন্ধন করেছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এর আগে অক্সফোর্ডের টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ১৫ জন। ৪২ লাখ ৮৯ হাজার ২১২ জন নিয়েছেন দ্বিতীয় ডোজ। সব মিলিয়ে অক্সফোর্ডের টিকা নিয়েছেন ১ কোটি ১ লাখ ৯ হাজার ২২৭ জন।

সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে এ পর্যন্ত ১ কোটি ২ লাখ ডোজ টিকা এসেছে। যারা প্রথম ডোজ পেয়েছেন, তাদের সবাইকে দ্বিতীয় ডোজ দেয়ার মতো অক্সফোর্ডের টিকা সরকারের হাতে নেই। তাই অন্য উৎস থেকে টিকা সংগ্রহের চেষ্টা চলছে।

টিকার আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্ম কোভ্যাক্স থেকে ফাইজারের তৈরি ১ লাখ ৬২০ ডোজ এবং চীনের উপহার হিসেবে দুই দফায় সিনোফার্মের ১১ লাখ ডোজ টিকা দেশে এসেছে, যা দিয়ে আবারো গণটিকাদান শুরু হলো।

Comments
Loading...
%d bloggers like this: