অনলাইনে প্রতারণার নতুন ফাঁদ ই-কমার্স

0
50

অনলাইন কেনাকাটায় প্রতারক চক্রের নতুন ফাঁদ এখন কুরিয়ার সার্ভিস। শর্ত সাপেক্ষে পণ্য সরবরাহের নামে প্রতারণা করে হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। পুলিশ বলছে, ই-কমার্স প্রতারণা রোধে প্রয়োজন একটি আলাদা নিয়ন্ত্রণ সংস্থা। আর ইক্যাব বলছে, ভূইফোঁড় প্রতিষ্ঠানকে আইনের আওতায় আনতে সন্মিলিত উদ্যোগের বিকল্প নেই।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাকিবুল ইসলাম। ফেসবুকে চটাকদার বিজ্ঞাপন দেখে শখের মোবাইল ফোনটি কিনতে প্রলুব্ধ হন। শর্ত প্যাকেট খোলার আগেই পরিশোধ করতে হবে দাম। করেছেনও তাই। কিন্তু প্রতারিত হয়ে শখের মুঠোফোনটি হাতে নিতে পারেননি। এমন প্রতারণার বলি তার মতো আরো অনেকেই

প্রতিদিন এমন ঘটনা অহরহ ঘটলেও অনেকটাই উদাসীন কুরিয়ার সার্ভস কর্তৃপক্ষ। সমাধানে দিতে পারেননি কোনো সদুত্তরও।

প্রতারক চক্র ফেসবুকে শতশত ভুয়া পেইজ খুলে চালাচ্ছে প্রতারণার নানা কূটকৌশল। মাঝে মধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে কেউ কেউ গ্রেপ্তার হলেও এর একটি বড় অংশ ধরা ছোঁয়ার বাইরে।

ভোগান্তির কথা স্বীকারও করেছেন ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ইক্যাব। প্রতারণা রোধে সন্মিলিত উদ্যোগের তাগিদ সংস্থাটির।

দেশে বর্তমানে প্রায় ১৫০০ কোম্পানি ইক্যাবের তালিকাভুক্ত। এর বাইরে নামে-বেনামে শত শত প্রতিষ্ঠান প্রতিনিয়ত নানাভাবে প্রতারিত করছে গ্রাহকদের। এদের বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।